এইচএসসি পরীক্ষা হবে না: শিক্ষামন্ত্রী

অনেক দীর্ঘদিন থেকে এইচ এসসি পরীক্ষার্থীরা অনিশ্চয়তার মধ্যে সময় কাটাচ্ছিলো । তাদেরকে অবশেষে আশার আলো দেখালেন শিক্ষামন্ত্রী ।

আজ বুধবার অনলাইনে সাংবাদিক সম্মেলনে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি জানান যে,

করোনাভাইরাসের কারণে এবারের উচ্চমাধ্যমিক (এইচএসসি) বা সমমানের পরীক্ষা হবে না। এসব শিক্ষার্থীর জেএসসি ও এসএসসি পরীক্ষার ফলাফলের ওপর ভিত্তি করে এইচএসসির মূল্যায়ন করা হবে। আগামী ডিসেম্বর এই মূল্যায়নের কাজটি করা হবে ।

গত ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে। ধাপে ধাপে তা ৩১ অক্টোবর পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে।

গত ১ এপ্রিল থেকে এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা হওয়ার কথা থাকলেও করোনাভাইরাস সংক্রমণের কারণে তা স্থগিত রয়েছে।

মহামারির কারণে এবার পঞ্চম ও অষ্টম শেণির সমাপনী পরীক্ষাও নেয়া হবে না সরকার। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের মূল্যায়নের ভিত্তিতে উপরের শ্রেণিতে তোলার কথা রয়েছে।

তবে চারটি শর্ত দিয়ে আগামী অক্টোবর ও নভেম্বর মাসে ব্রিটিশ কাউন্সিলের পরিচালনায় করোনা ভাইরাস প্রাদুর্ভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার কারণে এ বছর এইচএসসি ও সমমানের পরীক্ষা নেয়া হবে না। তবে ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়ন হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

বুধবার দুপুরে অনলাইন ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য জানান শিক্ষামন্ত্রী। শিক্ষার্থীদের জেএসসি ও এসএসসির ফলের ভিত্তিতে এ বছর এইচএসসির মূল্যায়ন হবে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ২০২০ সালের এইচএসসি পরীক্ষা সরাসরি গ্রহণ না করে ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যায়নের সিদ্ধান্ত নিয়েছি। এরা দুটি পাবলিক পরীক্ষা অতিক্রম করে এসেছে। এদের জেএসসি ও এসএসসির ফলের গড় অনুযায়ী এইচএসসির ফল নির্ধারণ করা হবে।

ডিসেম্বরের মধ্যে মূল্যায়নের ফলাফল ঘোষণা হবে বলে জানান তিনি।

এর আগে করোনা পরিস্থিতিতে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়াটা একটি বড় চ্যালেঞ্জ জানিয়ে শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এ অবস্থায় পরীক্ষার জন্য দ্বিগুণ কেন্দ্র প্রয়োজন হবে। এটি শিক্ষা বোর্ডগুলোর জন্য কঠিন হয়ে পড়বে। বিষয় কমিয়ে বা সিলেবাস কমিয়েও হয়ত পরীক্ষা নেয়া যায়। কিন্তু সেটা করলেও কিছু সমস্যা তৈরি হবে। এক্ষেত্রে অনেক শিক্ষার্থী ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। পরীক্ষার সময়ে কোনো শিক্ষার্থী আক্রান্ত হলে তিনি হয়ত কেন্দ্রে আসতে পারবে না। এ অবস্থায় বিভিন্ন দেশ তাদের পরীক্ষা বাতিল করেছে, কেউ কেউ স্থগিত করেছে।

পরীক্ষার্থীদের জীবনের নিরাপত্তা গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনা করে এইচএসসি পরীক্ষা সরাসরি গ্রহণ না করে ভিন্ন পদ্ধতিতে মূল্যয়নের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলেও জানান শিক্ষামন্ত্রী।

মন্ত্রী আরো বলেন, ডিসেম্বরের মধ্যে তারা এইচএসসির চূড়ান্ত মূল্যায়ন ঘোষণা করবেন, যাতে জানুয়ারি থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রক্রিয়া শুরু হতে পারে।

গত ৩০ সেপ্টেম্বর শিক্ষামন্ত্রী জানিয়েছিলেন, দ্রুত সময়ে ন্যূনতম বিষয় ও ন্যূনতম নম্বরের ভিত্তিতে পরীক্ষা নেয়া যায় কিনা তা পর্যালোচনা করা হচ্ছে। এছাড়াও কিছু বিকল্প প্রস্তাব নিয়ে চিন্তা-ভাবনা চলছে। চলতি বছরের এইচএসসি পরীক্ষা হওয়ার কথা ছিল এপ্রিলের শুরুতে। এবার এ পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ১৩ লাখের বেশি। কিন্তু পরীক্ষা শুরুর আগমুহূর্তে করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে স্থগিত করা হয় পরীক্ষা।

জি মাধ্যমের শিক্ষার্থীদের ‘ও’ এবং ‘এ’ লেভেলের পরীক্ষা নেয়ার অনুমতি দিয়েছে সরকার।

আল্লাহ হাফেজ । সবাই ঘরে থাকুন এবং নিরাপদে থাকুন । আপডেট নিউজ জানতে আমাদর সাথে থাকুন ।

3
0
Fozia Sayda

Fozia Sayda

আসসালামুআলাইকুম, আমাদের ওয়েবসাইট এ আপনাকে স্বাগতম। আমি অনার্স তত্বীয় বর্ষের একজন ছাত্রী। আমি মনে করি একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি আমাদের অনেক কিছুই শেখার আছে । আমরা আমাদের আশে পাশে থেকে অনেক বিষয়ে জানতে পারি। অবসর সময়গুলো নষ্ট না করে প্রতিনিয়ত কিছু না কিছু শিখে যুগের সাথে আমাদের তাল মিলিয়ে চলা উচিত। আমরা আমাদের ওয়েবসাইট এ আপনাদের সহজভাবে কিছু জিনিস শিখানো বা জানানোর চেষ্ঠা করছি। ধন্যবাদ সবাইকে আমাদের পাশে থাকার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *