জুম’আর দিনের গুরুত্ব ও ফযীলত (পর্ব-২)

রাসুূলুল্লাহ(ছাঃ) বলেন, ‘যে ব্যক্তি জুম’আর দিন গোসল করে সুগন্ধি মেখে মসজিদে এল ও সাধ্যমত নফল সালাত আদায় করল। অতঃপর চুপচাপ ইমামের খুৎবা শ্রবণ করল ও জামা’আতে ছালাত আদায় করল, তার পরবর্তী জুম’আ পর্যন্ত এবং আরও তিনদিনের গোনাহ্ মাফ করা হয় (বুখারী,মুসলিম,মিশকাত হা/১৩৮১-৮২)।

তিঁনি আরও বলেন,’জুম’আর দিন ফেরেশতাগণ মসজিদের দরজায় দাঁড়িয়ে থাকেন ও মুছুল্লীদের নেকী লিখতে থাকেন। এদিন সকাল সকাল(আগে আগে) যারা আসে তারা উট কুরবানির, তার পরবর্তীগণ ছাগল কুরবানির তার পরবর্তীগণ মুরগি কুরবানির ও তার পরবর্তীগণ ডিম কুরবানির সমান নেকী পান। অতঃপর খত্বীব দাঁড়িয়ে গেলে ফেরেশতাগণ দফতর গুটিয়ে ফেলেন ও খুৎবা শুনতে থাকেন(মুত্তাফাক্ব আলাইহ,মিশকাত হা/১৩৮৪)।

তিঁনি আরো বলেন ‘যে ব্যক্তি জুম’আর দিন ভালোভাবে গোসল করে।অতঃপর সকাল সকাল মসজিদে যায় পায়ে হেঁটে, গাড়িতে নয় এবং আগে ভাগে নফল ছালাত শেষে ইমামের কাছাকাছি বসে ও মনোযোগ দিয়ে খুৎবার শুরু থেকে শুনে এবং অনর্থক কিছু করেনা, তার প্রতি পদক্ষেপে এক বছরের ছিয়াম ও ক্বিয়ামের অর্থাৎ দিনের ছিয়াম ও রাতের বেলায় নফল ছালাতের সমান নেকী হয়(তিরমিযী, আবুদাঊদ, নাসাঈ,ইবনু মাজাহ্, মিশকাত হা/১৩৮৮)।

মনে রাখতে হবে যে ‘যে ব্যক্তি বিনা ওযরে (বিনা কারনে) তিন জুমা পরিত্যাগ করল, সে ব্যক্তি ‘মুনাফিক'(মির’আত ৪/৪৪৬)।

3
0
Mahmud Hasan Joy

Mahmud Hasan Joy

Writing is the way to share ones thought, inner imagination. Showing respect to all the quotes, references holders and holy books which are followed to enrich writing.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *