লোগো ডিজাইন ( পর্ব ১ )

আসসালামুআলাইকুম, আশা করি সবাই ভালো আছেন।আজ আমরা নতুন কিছু শিখতে যাচ্ছি।

 আজ আমরা একটি সহজ লোগো আকাঁর চেষ্ঠা করবো। আমরা ঠিক নীচের ছবির লোগোটি আাকার চেষ্ঠা করবো। 

(১) এটি আঁকার জন্য আমরা প্রথমে  File > new থেকে একটা নতুন আর্টবোর্ড নিবো। 

(২) তারপর আমরা ৫০০*৫০০ সাইজের আর্টবোর্ড  নিবো, Create দিলে নতুন আর্টবোর্ড  টি চলে আসবে। 

(৩) তার পর আমরা আর্টবোর্ড  এর সমান করে একটা সাদা চতুর্ভুজ  নিবো ব্যাকগ্রাউন্ড এর জন্য। 

(৪) তারপর লোগো আঁকার সময় যেন আর্টবোর্ড টি না নড়ে সেই জন্য আর্টবোর্ডটি আমরা  Ctrl +2 press করে লক করে দিবো। 

(৫) তারপর আমরা লাভ আকার জন্য দুটি একই সাইজ চতুর্ভুজ  নিবো। 

(৬) তারপর উপরে কালার অপশন থেকে কালার চয়েস করে দিতে হবে আর স্টোক কালার অফ করে দিতে হবে। 

(৭) তারপর আমরা সিলেকশন টুল দিয়ে সিলেক্ট করে চতুর্ভুজ দুটি ক্রোস করে বসাবো। যেনো সমান ভাবে বসে।

(৮) তারপর আমরা Direct selection tool নিয়ে চতুর্ভুজের একটা করে সাইড গোল করবো।

তারপর আরেকটির এক সাইড গোল করবো।

দুটির এ সাইড করে গোল হয়ে গেলো।

(৯) তারপর আমরা সিলেকশন  টুল দিয়ে পুরোটা সিলেক্ট  করে shape builder tool  নিবো।তারপর  লাভ সেপ তৈরির জন্য যতটুকু দরকার  ততটুকু তে সেপ বিল্ডার টুল দিয়ে প্লাস করে নিবো।

(১০) তারপর যতটুকু অংশ বাতিল করতে হবে সেইটুকুর জন্য প্রথমে পুরোটা সিলেক্ট করে তারপর সেপ বিল্ডার টুল নিয়ে Alt  প্রেস থাকা অবস্হায়  ডিলেট বা মাইনাস করবো। 

(১১)তারপর আমরা দেখতে পারতেছি যে আামাদের একটা পারফেক্ট লাভ সেপ তৈরী  হয়ে গেছে। 

 এখন সিলেকশন টুল দিয়ে সিলেক্ট করে লাভটিকে আমরা সোজা বাকা যেকোন পজিশন এ নিতে পারি। 

(১২) এখন আমরা ইচ্ছা করলেই কালার চেন্জ করে দিতে পারি। আর ইচ্ছা মতো স্টোক কালার দিতে পারি। 

(১৩) আবার ইচ্ছা করলেই স্টোক কালার দিতে পারি, যেটি ইচ্ছা বা ভালো লাগবে।এখানে আমরা স্টোক ১০ এবং স্টোক কালার ব্লাক দিয়ে দেখি। 

(১৪) আমরা ইচছা মতো শুধু স্টোক কালার দিয়ে ফিল্ড কালার অফ রাখতে পারি। ঠিক নীচের পিক এর মতো।

(১৫) আবার আমারা শুধু ফিল্ড  কালার রেখে স্টোক অফ রাখতে পারি। 

(১৬) আবার ফিল্ড কালার আর স্টোক একসাথে রেখেও কাজ করতে পারি। 

আমরা যেমন দেখতে ভালো লাগবে তাই করবো।

(১৭) আমরা সিলেকশন  টুল দিয়ে সিলেক্ট করে এটি ছোট বড় করতে পারবো।

আমরা যদি Shift + Alt চেপে ছোট বড় করি তাহলে চারদিকে ঠিক সমানভাবে ছোট বড় হবে আর যদি এমনিতে করি শেপ নষ্ট হতে পারে। আর Alt চেপে আমরা Copy করতে পারি একই জিনিস। 

(১৮) আমরা এখুন নীচের পিকটি দেখি আমরা একটি লাভ শেপ এই তিন ধরনের বানাতে পারবো।

(১৯) এখন আমরা object থেকে unlock All করবো তারপর ব্যাকগ্রাউন্ড কালার চেন্জ করবো। যেই কালারে লোগো সুন্দর লাগবে সেটি রেখে দিবো। 

(২০) তারপর আমরা লাভ লোগো হিসেবে ব্যবহার করতে পারবো। 

(২১) তারপর আমরা এখন ফাইল থেকে এটি সেভ করতে পারি বিভিন্ন ফরমাট এ যা আমরা পূর্বেই বেসিক ইলাস্ট্রেটর এ শিখেছি। 

আশা করি সবাই বুঝতে পেরেছেন। তারপরেও কারো কোন সমস্যা থাকলে বলবেন ক্লিয়ার করার চেষ্ঠা করবো। পরবর্তিতে আরো নতুন কিছু দেখানো হবে। 

আল্লাহ হাফেজ, সবাই ভালো থাকবেন।

2
0
Fozia Sayda

Fozia Sayda

আসসালামুআলাইকুম, আমাদের ওয়েবসাইট এ আপনাকে স্বাগতম। আমি অনার্স তত্বীয় বর্ষের একজন ছাত্রী। আমি মনে করি একাডেমিক শিক্ষার পাশাপাশি আমাদের অনেক কিছুই শেখার আছে । আমরা আমাদের আশে পাশে থেকে অনেক বিষয়ে জানতে পারি। অবসর সময়গুলো নষ্ট না করে প্রতিনিয়ত কিছু না কিছু শিখে যুগের সাথে আমাদের তাল মিলিয়ে চলা উচিত। আমরা আমাদের ওয়েবসাইট এ আপনাদের সহজভাবে কিছু জিনিস শিখানো বা জানানোর চেষ্ঠা করছি। ধন্যবাদ সবাইকে আমাদের পাশে থাকার জন্য।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *